Sunday, 5 October 2014

মেলাভাঙার গান
- তৌকীর আহমেদ

হলুদ ফিতে লাল চুড়ি,
রঙিন ফ্রকের কোঁচড়ে
বাতাসা, গজা, নৈ টানা।
নাগরদোলায় ঘূর্ণন শেষে
গ্যালিলিওর মতো একই বোধে উপনীত সে,
যার নাম কখনো সে শুনবে না হয়তো,
তবু বোধের কী আশ্চর্য মিল কালান্তরে।
তীব্র ঘূর্ণনে এখন বিপর্যস্ত সে
ভিসুভিয়াসের লাভার মতো উদ্গিরণ
করে সে বাতাসা, গজা আর নৈ টানার নৈবদ্য।
সাপুড়ের খেলা, পুতুলনাচ, বায়োস্কোপ
কিছুই দেখা হয় না তার।
কিন্তু তার চেয়েও বড় কষ্ট পেয়ে বসে তাকে—
হলুদ ফিতে হারানোর কষ্ট।
এদিক–ওদিক আঁতিপাঁতি খুঁজে চলে তার 
বিষণ্ন ক্লান্ত চোখ—কোথাও পাওয়া যায় না
হলুদ ফিতে।
সময় বয়ে যায়।
সময়ের স্রোতে বালিকার সুখ হারায়। 
বেলা ফোরালে মেলা ভাঙে,
ভাঙা মেলা—শুক্কুর বারের হাটের
মাঠটাকে বিরান করে হঠাৎ,
একে একে চলে যায় সাপুড়ে,
জাদুকর, বেদে আর মিঠাইওয়ালা।
পড়ে থাকে একরাশ ছেঁড়া কাগজ
ছেঁড়া ঠোঙা, রঙিন সুতলি অসম্পূর্ণ সরীসৃপের মতো
ফিরে যায় সবাই, ফিরে যেতে হয়,
কে কবে থেকেছে ভাঙা মেলায়। 
মেলা ভাঙে
বুক ভাঙে বালিকার।
হলুদ ফিতের কষ্ট তাকে না ভাঙা মেলার
স্বপ্ন দেখায়। সেই স্বপ্ন ক্রমেই
হলুদ ফিতের আকার নিয়ে জড়িয়ে যায়
তার লালচে ফেরফ্যারা চুলে।
মেলা ভাঙে, ভাঙতেই হয়, ভাঙবেই তো
তবু বালিকার চুলে জড়ানো
হলুদ স্বপ্ন—
কিশোরীর হয়, তরুণীর হয়
সময় বয়ে যায় তবু
মেলা ভাঙে স্বপ্ন হারায়, সুখেরা পালায় 
কে কবে থেকেছে ভাঙা মেলায়

0 comments:

প্রিয় কবিতারা...